বুদ্ধি ও স্মরণশক্তি বাড়তে খাবার

image

সময় মতো সঠিক সিদ্ধান্ত নেবার ক্ষমতা সবার একরকম হয়না। সে কারনেই কর্মক্ষেত্রে কেউ কেউ অন্যদের চেয়ে ভীষন করমের আলাদা হয়। আবার দেখা যায় ক্লাসে আপনার সন্তান অন্যদের সাথে ঠিকমতো তাল মিলিয়ে চলতে পারছে না। তাহলে সমস্যা কোথায়? সমস্যা হচ্ছে আপনার বা আপনার সন্তানের বুদ্ধি ও স্মরণশক্তিতে। কিন্তু বাস্তবতা হলো বর্তমান যুগে বুদ্ধি ছাড়া চলা দায়।

বুদ্ধি বাড়াতে দরকার পুষ্টিকর খাবার। কারণ, বুদ্ধিমান হতে দরকার মস্তিষ্কের পুষ্টি। বুদ্ধিই বল। সঠিক স্বাস্থ্যসম্মত খাবার মস্তিষ্ককে উর্বর করতে পারে। এক্ষেত্রে, শুধু হেলথ ড্রিংকেই আটকে থাকলে চলবে না। দরকার অন্য কিছুর। জেনে নেওয়া যাক বুদ্ধির বীজকে কীভাবে বড় বৃক্ষে পরিণত করা যায়-

তৈলাক্ত মাছ : বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছে আছে প্রচুর ফ্যাটি অ্যাসিড। এই ফ্যাটি অ্যাসিড মস্তিষ্ক, চোখ ও স্নায়ুতন্ত্র গঠনে ভূমিকা রাখে। সপ্তাহে দুদিন সামুদ্রিক মাছ খেতে পারলে মস্তিষ্কঘটিত সমস্যা কম হবে। ব্রেনও পুষ্ট হবে।

পাতাওয়ালা সবজি : সবুজ রঙের পাতাওয়ালা সবজি শরীরের পাশাপাশি মস্তিষ্ককেও পুষ্ট করে। প্রতিদিন সবুজ পাতাওয়ালা সবজি খেলে স্মৃতি বিলুপ্তির মতো ঘটনা ঘটবে না। বিশেষ করে পালং শাক, ব্রকোলি খাওয়া খুব উপকারী। কারণ, এতে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ফলিট, বিটা-ক্যারোটিন ও ভিটামিন-সি।

ডার্ক চকোলেট : ওবেসিটির ভয়ে যারা চকোলেট খাওয়া এক প্রকার ছেড়ে দিয়েছেন, তাদের জন্য রইল সুখবর। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন- ডার্ক চকোলেট ব্রেনের জন্য উপকারী। এর ফ্ল্যাবনয়েড উপাদান কগনিটিভ স্কিলের উন্নতি ঘটায়। এছাড়া মস্তিষ্কে নিউরন তৈরি করে, যা নতুন বিষয় মনে রাখতে সাহায্য করে। মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতেও সাহায্য করে ডার্ক চকোলেট।

আরো পড়ুন: সারাদিনের ক্লান্তি কমাবে জলজ বাগা