কুসংস্কার ভাঙছে রোমানি ডিজাইন

হাঙ্গেরির রোমা সম্প্রদায়ের নিজস্ব ঐতিহ্য নিয়ে কাজ করা একমাত্র ফ্যাশন স্টুডিও—-রোমানি ডিজাইন। রোমা সংস্কৃতির বিভিন্ন মোটিফ ফুটিয়ে তোলা হয় তাদের পোশাকসহ নানা অনুসঙ্গে। ব্র্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা এরিকা ভারগার আশা, তার এই উদ্যোগের মাধ্যমে বিশ্বে আলাদা স্থান পাবে রোমা সংস্কৃতি।

ইন্দো-আর্য বংশদ্ভুত জনগোষ্ঠি রোমা বা রোমানি, অনেকেই যাদের চেনে যাযাবর বা জিপসি হিসেবে। ধারণা করা হয় প্রায় দেড় হাজার বছর আগে এই ভারতীয় উপমহাদেশ থেকেই ইউরোপে ছড়িয়ে পড়ে রোমারা। বর্তমানে এদের একটা বড় অংশের বাস হাঙ্গেরিতে ।

হাঙ্গেরিয় সংষ্কৃতির সাথে রোমা ঐতিহ্যের মেলবন্ধন বহুদিনের, তবু তাদের নিয়ে কুসংষ্কারও কম নয়। এইসব কুসংস্কারের বিরোধীতা করে নিজেদের সংস্কৃতিকে নতুন মাত্রায় নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে  রোমানি ডিজাইন। ২০০৯ সালে, রাজধানী বুদাপেস্টের উপকণ্ঠে এটি প্রতিষ্ঠা করেন এরিকা ভারগা।

ঐতিহ্যবাহী রোমানি মোটিফ নিয়ে কাজ করে রোমানি ডিজাইন। পোশাক, ব্যাগ এবং সাজের নানা অনুষঙ্গ সবকিছুতেই পাওয়া যাবে রোমা সংস্কৃতির ছোঁয়া।

শুরুটা সহজ না হলেও এখন সময় পাল্টেছে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ফ্যাশান শোতে রোমা ও হাঙ্গেরির সংস্কৃতিকে তুলে ধরেছে রোমানি ডিজাইন। জার্মানি, ফ্রান্স, ভারত, মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে অবস্থিত হাঙ্গেরির দূতাবাসের অনুষ্ঠানেও অংশ নেয় এরিকার দল। সংস্কৃতি তুলে ধারার পাশাপাশি নারী উদ্যোক্তাদের এগিয়ে নেয়াও তার আরেক লক্ষ্য।

পোশাক এবং নানা অনুষঙ্গের পাশাপাশি সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য সৃজনশীল প্রশিক্ষণের মত নানা সামাজিক কার্যক্রমের সাথে যুক্ত এরিকা ও তার রোমানি ডিজাইন স্টুডিও। সামাজিক দায়বদ্ধতার স্বীকৃতি হিসেবে ২০১২ সালে গ্ল্যামার উইমেন অব দা ইয়োর পুরস্কার পেয়েছেন এরিকা ভারগা।